জান্নাতের সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার

আপনি কি জানেন, জান্নাতের সবচেয়ে চমকপ্রদ বিষয়টি কী হবে? আল্লাহ আমাদের সবাইকে জান্নাতে একত্রিত করবেন ইনশাআল্লাহ! এবং আল্লাহ আমাদের সাথে কথা বলবেন। কল্পনা করুন… সহীহ হাদিস ভাইয়েরা, আমি চাই আপনারা সত্যিকার অর্থেই ব্যাপারটা কল্পনা করুন কোনো হাসি ঠাট্টা নয়। জান্নাতে আল্লাহ্‌ আমাদের সকলকে একত্রিত করবেন এবং আল্লাহ আমাদের সাথে কথা বলবেন আমার ভাই ও বোনেরা, আল্লাহ আপনাদের জিজ্ঞাসা করবেন “তোমরা কি আর কিছু চাও? তোমাদের জন্য আর কী করতে পারি?”

কল্পনা করুন, এই ভঙ্গিমায় আল্লাহ আপনার সাথে কথা বলছেন… কল্পনা করুন আল্লাহ আপনাকে ডেকে বলছেন, আমি কি তোমার জন্য আর কিছু করতে পারি? তখন আমরা বলব, “হে আল্লাহ! আপনি আমাদের জাহান্নাম থেকে রক্ষা করেছেন, আমাদের জান্নাতে দাখিল করেছেন, আপনি আমাদের চিরদিনের জন্য জান্নাতে থাকার সুযোগ দিয়েছেন, আপনি আমাদের এতসব ভোগবিলাসের সামগ্রী প্রদান করেছেন হে আল্লাহ! আমাদের আর কিইবা চাওয়ার থাকতে পারে?”
তখন আল্লাহ বলবেন, “তোমরা কি সন্তুষ্ট?” আমরা বলব, “হে আল্লাহ! আমরা এতটাই সন্তুষ্ট যে আমাদের আর কিছুই চাওয়ার নেই!” আল্লাহ বলবেন- “যদি তা-ই হয়ে থাকে আজকের দিন থেকে আমি কথা দিচ্ছি যে আজকের দিন থেকে, আমি আর কোনোদিন তোমাদের উপর অসন্তুষ্ট হবো না! (অর্থাৎ আমি চিরদিনের জন্য তোমাদের উপর সন্তুষ্ট হয়ে গেলাম!)”। এটা কল্পনা করুন ভাইয়েরা আমার…কল্পনা করুন, আল্লাহ আপনার উপর আর কক্ষনো রুষ্ট হবেন না!

আপনি কি ভাবছেন এখানেই শেষ? ওয়াল্লাহি, এখানেই শেষ নয়! রাসূলুল্লাহ (সা.) সহীহ হাদিসে আমাদের জানিয়েছেন…আল্লাহ আমাদের একত্রিত করবেন আরেকবার এবং বলবেন, “হে আমার বান্দারা! তোমরা কি সুখী? তোমরা কি খুশি? তোমরা কি সন্তুষ্ট?” এবং আমরা উত্তর দিবো…”হে আল্লাহ! আমাদের আর কি চাওয়ার থাকতে পারে?” “হে আল্লাহ! আমরা যা চেয়েছি, আপনি তো আমাদের সবই দিয়েছেন! হে আল্লাহ! আপনি আমাদের জান্নাত দিয়েছেন, আপনি আমাদের সকল ইচ্ছা পূরণ করেছেন। এবং আপনি আমাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে, আমাদের উপর আর কখনোই অসন্তুষ্ট হবেন না। হে আল্লাহ! আমরা এর চেয়ে বেশি আর কিইবা চাইতে পারি?” তখন আল্লাহ আমাকে এবং আপনাকে বলবেন… আল্লাহ বলবেন, “এই মুহূর্তে আমি পর্দা সরিয়ে ফেলবো এবং তোমরা আমায় দেখবে, নিজ চোখে তোমরা তোমাদের রবকে প্রত্যক্ষ করবে।” ভাবুন আপনি আল্লাহকে দেখছেন! সাহাবারা (রা.) জিজ্ঞেস করলেন তাঁরা জিজ্ঞেস করলেন, “ইয়া রাসূলুল্লাহ (সা.)! আমরা কি সত্যিই আল্লাহকে স্বচক্ষে দেখতে পাবো? তখন রাসূলুল্লাহ (সা.) (আকাশে) পূর্ণিমার চাঁদের দিকে ইশারা করলেন তিনি বললেন, “তোমরা কি এই পূর্ণিমার চাঁদ দেখতে পাচ্ছো?” তাঁরা উত্তর দিলেন, “হ্যাঁ। রাসূলুল্লাহ (সা.) বললেন, “পূর্ণিমার চাঁদ দেখতে যেমন তোমাদের কোনো অসুবিধা হয় না; ঠিক তেমনি তোমরা আল্লাহকে দেখতে পাবে!”

ভাই ও বোনেরা, এটাই জান্নাতের সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার। দুনিয়ার জীবনের এই ৫০-৬০ বছর, ওয়াল্লাহি, এটা তো কিছুই না! যারা (আল্লাহর জন্য) কঠোর পরিশ্রম করে, যারা তাদের দ্বীনের উপর অটল-অবিচল থাকে জেনে রাখুন, এটাই হচ্ছে আল্লাহর প্রতিশ্রুতি!

(Visited 88 times, 1 visits today)

মতামত

comments